বিভিন্ন ধরনের ওয়েব হোস্টিং ব্যবসা | হোস্টিং কোম্পানী পার্ট – ২

নেভিগেশন

এখন পর্যন্ত হোস্টিং বিজনেস টিউটোরিয়াল সিরিজ এ পাবলিশ হওয়া সকল পোস্ট।

 

সবাইকে হোস্টিং কোম্পানী সিরিজ এর দ্বিতীয় পর্বে স্বাগতম। আজকে আমরা আলোচনা করবো বিভিন্ন ধরনের ওয়েব হোস্টিং ব্যবসা অর্থাৎ ওয়েব হোস্টিং ব্যবসার বিভিন্ন পরিসর সম্পর্কে ।

আপনি যদি ওয়েব হোস্ট কম্পানী চালাতে আগ্রহী হন তবে আপনার ওয়েব হোস্টিং পরিষেবাগুলো অন্যদের তুলনায় আরও ভাল করতে হবে। আপনার বাজার এবং ব্র্যান্ডিং কী তা সুনির্দিষ্টভাবে নিশ্চিত করুন এবং সকল ধরনের কাস্টমারের কাছে বিক্রি করার চেষ্টা করবেন না। কারণ অনেকগুলি বৃহত হোস্ট কম্পানী আছে যারা ইতিমধ্যে কোনও নির্দিষ্ট বাজারকে টার্গেট করে না অর্থাৎ তারা সব ধরনের হোস্টিং সার্ভিস বিক্রি করে থাকে, তাই আপনি একদম শুরু থেকেই বড় পরিসরে কিছু করতে পারবেন না। এর পরিবর্তে, ছোট এবং কোন নির্দিষ্ট মার্কেট দিয়ে শুরু করুন। আপনার ব্র্যান্ড শুরু করার পূর্বে নিচের বিষয় গুলো মাথায় রাখুনঃ

  • আপনার টার্গেট মার্কেট কী?
  • ব্রান্ডের নাম কী? একটি সংক্ষিপ্ত এবং স্মরণীয় নাম বাছাই করুন যাতে ক্রেতাদের সহজেই তা মনে থাকে। সেখানে প্রচুর ওয়েব হোস্ট রয়েছে, সুতরাং আপনার ব্রান্ড নাম অবশ্যই ইউনিক হওয়া প্রয়োজন।
  • আপনার হোস্টিং পরিষেবাগুলো কীভাবে অন্যদের থেকে আলাদা এবং ভালো? এটা নির্বাচন করুন। (ধরুন কেউ ১২ ঘন্টার মধ্যে কাস্টমার দের সাপোর্ট টিকেট এর উত্তর দিচ্ছে কিন্তু আপনি ১ ঘন্টার মধ্যেই সাপোর্ট দিচ্ছেন, আবার ম্যনেজড হোস্টিং সেবা দিচ্ছেন। এভাবে আপনার বিজনেস অন্যদের থেকে এগিয়ে থাকবে।)
  • আপনি প্রধানত কোন ধরনের হোস্টিং সার্ভিস সরবরাহ করবেন? শেয়ার্ড হোস্টিং, রিসেলার হোস্টিং, ভিপিএস হোস্টিং, ডেডিকেটেড হোস্টিং এবং অন্যান্য। (শেয়ার্ড হোস্টিং সর্বাধিক জনপ্রিয়  এবং ঝামেলা ছাড়াই শুরু করা যায়, তাই বেশিরভাগ হোস্ট এটা দিয়েই শুরু করে। রিসেলার হোস্টিং, ভিপিএস হোস্টিং এবং ডেডিকেটেড হোস্টিং ইত্যাদি সেবা প্রদান করতে আপনার নিজস্ব সার্ভার, অনেক বেশি বাজেট এবং টেকনিক্যাল নলেজ থাকতে হবে।)

যাইহোক শুরু করার পরে কি ধরনের হোস্টিং সেবা প্রদান করবেন সেটা নিজেই বুঝে যাবেন, এছাড়াও ডোমেইন এবং বিভিন্ন ধরনের অ্যাডন সার্ভিস প্রোভাইড করা যায়। চলুন জেনে নেই শুরু টা কিভাবে করবেন …

রিসেলার হোস্টিং নিয়ে ব্যাবসাঃ

একটি নতুন হোস্টিং কম্পানী শুরু করতে এটি সবথেকে  বেশি জনপ্রিয় মাধ্যম। রিসেলার হোস্টিং বিক্রি করে এমন কোন প্রোভাইডার এর থেকে তাদের সার্ভিস নিয়ে আপনি নিজে থেকে শুরু করতে পারেন হোস্টিং ব্যবসা।  এরপর আপনার ব্যবসা যখন গ্রো করবে তখন নিজস্ব সার্ভার কিনে  পূর্বের ক্লায়েন্ট এবং ডাটা নিজের সার্ভার এ ট্রান্সফার করে নিতে পারবেন। রিসেলার হোস্টিং অনেক সাশ্রয়ী, আপনি মাত্র ৫০০ টাকার মধ্যেও একটি রিসেলার প্যাকেজ পেয়ে যাবেন।

ডেডিকেটেড সার্ভার নিয়ে ব্যবসাঃ

আপনার যদি বাজেট বেশি থাকে এবং বড় পরিসরে শুরু করতে চান, তাহলে রিসেলার হোস্টিং না নিয়ে সরাসরি ডেডিকেটেড সার্ভার নিয়ে শুরু করতে পারেন।  তবে ডেডিকেট সার্ভার নিলে খরচ টা কিছুটা এরকম হবে ???

  • ভালো মানের সার্ভার এর প্রাইজ – ১০,০০০ টাকা প্রতি মাস।
  • ক্লায়েন্ট দের জন্য কনট্রল প্যানেল – যেমন ১০০ টি সিপ্যানেল এর দাম  ৪১২২ প্রতি টাকা।
  • ওয়েব হোস্টিং এর জন্য অতি প্রয়োজনীয় কিছু অ্যাডন – যেমন ক্লাউডলিনাক্স, লাইটস্পীড, ইমিউলিফাই,  সফটাকুলাস, জেটব্যাকাপ ইত্যাদি, এসবের ভ্যালিড লাইসেন্স এর জন্য আরোও  ১০,০০০ টাকা প্রতি মাস।

তো বুঝতেই পারছেন ডেডিকেটেড মেশিন এ  সবমিলিয়ে ২৫,০০০ টাকার মত খরছ হবে প্রতি মাসে। *এই প্রাইসিং  গুলো আমার ব্যক্তিগতভাবে ক্যাল্কুলেট করা,  আসল কোস্ট এর থেকে কম বা বেশি হতে পারে। আরেকটি বিষয় হচ্ছে, ডেডিকেটেড সার্ভার নিয়ে কাজ করতে চাইলে সার্ভার এর ম্যানেজমেন্ট এর সব দায়িত্ব ওপর থাকবে, অর্থাৎ কোন সিস্টেম কাজ না করলে সেটা আপনাকে নিজেই সলভ করতে হবে।

আবার এর থেকেও যদি বড়সর পরিসরে করতে চান অর্থাৎ ভিপিএস ডেডিকেটেড সার্ভার আপনি নিজেই বিক্রি করতে চান, তাহলে আপনাকে নিজে হার্ডওয়্যার কিনতে হবে অথবা অন্য কোন ডাটা সেন্টার ভাড়া করে নিতে পারেন, যেটা ভীষণ ব্যয়বহুল ??

ম্যানেজড ভিপিএস সার্ভার নিয়ে ব্যবসাঃ

অনেক কোম্পানী আছে যারা ভিপিএস সার্ভার সার্ভার প্রদান করে থাকে, তবে সবগুলো ভিপিএস সার্ভার হোস্টিং বিজনেস এর জন্য ব্যবহার করা উপযোগী নয়। কিছু কোম্পানী রয়েছে যেখান থেকে আপনি একদম ম্যানেজড ভিপিএস সার্ভার নিতে পারবেন এবং এইসব সার্ভার এর সাথে সিপ্যানেল ডাব্লুএইচএম  কনট্রল প্যানেল পাবেন। এরকম একটি সার্ভার এর খরচ ৪২৫০ টাকা প্রতি মাস, দেখতে এখানে ক্লিক করুন। এবং এইসব সার্ভার ব্যাক এন্ড আপনাকে মেনেজ করতে হবে না, ধরুন কোন কারনে সার্ভার এর কোন সিস্টেম কাজ করছে না, তখন আপনি আপনার সার্ভার প্রোভাইডার এর থেকে এটা সলভ করে নিতে পারবেন।

এফিলিয়েট মার্কেটিংঃ

এই ফিল্ড টাকে ওয়েব হোস্টিং ব্যবসার পর্যায়ে নিয়ে আশা যায় না তবে হোস্টিং নিয়ে প্রাথমিক ভাবে কাজ করতে বা মার্কেট সম্পর্কে জানতে এটার সাহায্য নিতে পারেন, সাথে কিছু আয় ও করতে পারেন। এফিলিয়েট সম্পর্কে তো আপনারা জানেন ই।  কিছু কিছু  হোস্টিং কোম্পানী আছে যারা এফিলিয়েট  মার্কেটিং সাপোর্ট  করে। ধরুন কোন কম্পানী ৩০% এফিলিয়েট  কমিশন দিয়ে থাকে, তাহলে আপনার এফিলিয়েট  এর মাধ্যমে কোন ক্লায়েন্ট যদি সেই কোম্পানী এর থেকে ১০০০ টাকার কোন হোস্টিং  প্যকেজ কিনে, তখন আপনি ১০০০ টাকার ৩০% পাবেন অর্থাৎ ৩০০ টাকা, কোন ইনভেস্টমেন্ট ছাড়াই ?

যাইহোক হোস্টিং ব্যবসার ক্ষেত্রে নতুনদের জন্য আমার পরামর্শ হলো  রিসেলার হোস্টিং দিয়ে শুরু করা, এবং এটাই হবে আমাদের হোস্টিং কোম্পানী টিউটোরিয়াল সিরিজের পরবর্তি পর্বের বিষয়। তো ইনশাআল্লাহ দেখা হচ্ছে পরবর্তী পর্বে ! আপনার যেকোন মতামত কমেন্ট সেকশনে জানাতে পারেন ?


যেকোন পরিস্থিতিতে আমার সাথে যোগাযোগ করতে পারেনঃ

ফেসবুক, টুইটার, রেড্ডিট, ইন্সটা –  @MrOxidane

ব্লগ –  প্রযুক্তিরসাথে

হোস্টিং রিলেটেড ফেসবুক গ্রুপ – BD Web Hosting Solutions

ওয়েব হোস্টিং অফারঃ

অফেক্স এ ৫ জিবি সিপ্যানেল ওয়েব হোস্টিং ১০০ টাকা মাস অথবা ৮০০ টাকা প্রথম বছর, কুপনঃ CST800 >>

অফেক্স এ ১০ জিবি রিসেলার ওয়েব হোস্টিং মাত্র ৪২৫ টাকা মাস >>

অফেক্স ওয়েব হোস্টিং অ্যাফিলিএট মার্কেটিং এ ৩০% কমিশন, অ্যাফিলিএট রেজিস্ট্রেশান এ ফ্রী ৮৫ টাকা >>

Mr Oxidane
Harder than the hardest | Softer than the softest